ঘরে মা-ছেলের গলাকাটা লাশ


জেলা সংবাদদাতা: | Published: 2018-07-22 06:47:37 BdST | Updated: 2019-08-25 21:36:15 BdST

পাবনা সদর উপজেলায় চরতারাপুর ইউনিয়নের বোরোগীপাড়া গ্রামে নিজ ঘর থেকে শনিবার সন্ধ্যায় মা-ছেলের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত ব্যক্তিরা হলো রুশী খাতুন (২৫) ও তাঁর দুই বছরের সন্তান রোহান হোসেন। রুশী খাতুন ওই গ্রামের সুজন আলীর স্ত্রী।

গ্রামের লোকজন ও প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রুশীর স্বামী সুজন আলী বাড়িতে ছিলেন না। তিনি দুপুর থেকে সন্তানকে নিয়ে নিজ ঘরে অবস্থান করছিলেন। দরজা ভেতর থেকে আটকানো ছিল। দীর্ঘ সময় ঘরের দরজা না খোলায় বিকেল থেকে স্বজন ও প্রতিবেশীদের সন্দেহ হয়। কৌতূহলবশত সন্ধ্যা সোয়া ছয়টার দিকে তাঁরা ঘরের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকলে মা-ছেলের গলাকাটা লাশ দেখতে পান। ঘরের মেঝেতে মায়ের ও চৌকির ওপর শিশুসন্তানের লাশ পড়ে ছিল। পরে থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে রক্তমাখা একটি চাকু ও দুজনের লাশ উদ্ধার করে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

পাবনার সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) ইবনে মিজান বলেন, ‘মায়ের পায়ের কাছে রক্তমাখা চাকু ছিল। প্রাথমিকভাবে স্থানীয় ব্যক্তিরা বলছেন, তিনি (রুশী খাতুন) মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। মানসিক সমস্যার কারণে তিনি শিশুসন্তানকে হত্যার পর আত্মহত্যা করতে পারেন। আবার এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডও হতে পারে। আমরা বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখছি। এটি হত্যা না আত্মহত্যা, তা পরিষ্কার হতে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।’

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।